ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার ৫ টি দারুণ উপায়

ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার একাধিক পদ্ধতি রয়েছে। যারা হাতে লিখে আয় করতে চান তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেল। সাধারণত আমাদের এই ব্লগ ওয়েবসাইটে অনলাইন বিজনেস এবং ডিজিটাল মার্কেটিং রিলেটেড কনটেন্ট আমরা পোস্ট করে থাকি। ঠিক আজকের এই আর্টিকেলটিতে আপনাদের সাথে শেয়ার করব ঘরে বসে হাতে লিখে কিভাবে আয় করতে পারেন এই বিষয়ে।

ঘরে বসে হাতে লিখে আয়

আর্টিকেল রাইটারদের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এটা নিয়ে কোন সন্দেহ নাই। যদি আপনি একজন আর্টিকেল রাইটার হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি অবশ্যই অনলাইনে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করতে পারবেন। এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে আপনি কি কি বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লিখতে পারেন? এবিষয় নিয়ে আসলে আপনাকে ধারণা দিলে আপনি বুঝতে পারবেন যে ঘরে বসে হাতে লিখে আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

যদি আপনি ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে এই লেখাটির সম্পূর্ণ পড়ুন। এবং এই লেখাটিতে শেয়ার করা গাইডলাইনটি পরিপূর্ণভাবে অনুসরণ করুন। এছাড়াও আমাদের এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত আরও বিভিন্ন অনলাইন ইনকাম রিলেটেড আর্টিকেলগুলো আপনি অনুসরণ করতে পারেন। যার মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন।

ঘরে বসে হাতে লিখে ইনকাম করে ৫টি উপায়:

ইনকাম তো সবাই করতে চায় কিন্তু পরিশ্রম কেউ করতে চাই না। যদি আপনি পরিশ্রম করতে পারেন তাহলে অবশ্যই অনলাইন থেকে হাতে লিখে ইনকাম করতে পারবেন। তাই আপনি যদি অনলাইন থেকে ঘরে বসে আয় করতে চান, তাহলে অবশ্যই আমাদের আজকের শেয়ার করা ৫টি উপায় থেকে যেকোনো একটি উপায় নিয়ে আপনাকে কাজ করতে হবে।

আপনি চাইলে একাধিক ক্যাটাগরীতে কাজ করতে পারেন। এর জন্য শুধুমাত্র আপনার লিখার যোগ্যতা থাকতে হবে। যদি আপনি লিখেন তাহলে আপনার লেখাগুলোকে আপনি প্রিমিয়াম বিভিন্ন প্লাটফর্মে বিক্রি করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার রাইটার হিসেবে কাজ করতে পারেন।

আরও পড়ুন:   ৭টি ফ্রি টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট আপস ও ইনকাম টিপস

একটু লক্ষ্য করুন:

এই আর্টিকেলটিতে আমরা যে সকল হাতে লিখে ইনকামের পদ্ধতি আপনাদের সাথে শেয়ার করব। এই পদ্ধতিগুলোতে আপনি অনলাইনে লিখবেন না, অথবা আপনার স্মার্টফোনে লিখলে হবে না, বা আপনার কম্পিউটারে টাইপিং করে লিখতে হবে না। এই ব্লগ পোষ্টের মধ্যে আমি এমন আইডিয়াগুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করব যেগুলোর মাধ্যমে আপনি হাতে লিখে ঘরে বসে আয় করতে পারবেন।

১. হাতে লেখা বিয়ের স্টেশনারী বিক্রি করুন:

হাতে লেখা বিয়ের স্টেশনারী বিক্রি
হাতে লেখা বিয়ের স্টেশনারী বিক্রি

হাতে লেখা ষ্টেশনারী গুলো তৈরি খরচ কম কিন্তু বিক্রি করা যায় বেশি দামে। যদি আপনি হাতে লেখে ঘরে বসে আয় করতে চান, তাহলে এটি আপনার জন্য অত্যন্ত সুন্দর একটি পদ্ধতি হবে। হাতের লেখা সুন্দর থাকলেই আপনি ক্রিয়েটিভ বিভিন্ন ষ্টেশনারী তৈরি করতে পারবেন। যেগুলোতে আপনি হাতে লিখেই আপনার ক্রিয়েটিভিটি কে ফুটিয়ে তুলতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে হাতে লেখা বিয়ের ষ্টেশনারী বিক্রি জনপ্রিয় একটি মাধ্যম। আপনি আপনার হাতের লেখা বিয়ের ষ্টেশনারী বিক্রি করে ভালো মানের একটি বিজনেস শুরু করতে পারবেন। আর বিয়ের স্টেশনারী বিক্রি করার জন্য আপনাকে শুধু মাত্র অর্ডার কালেকশন করতে হবে। যদি আপনি আপনার আশেপাশের বিভিন্ন ইভেন্টের অর্ডারগুলো পেয়ে যান, তাহলেই আপনি ঘরে বসেই হাতে লিখে আয় করতে পারবেন।

২. হাতে লেখা সার্টিফিকেট বিক্রি করুন:

হাতে লেখা সার্টিফিকেট বিক্রি
হাতে লেখা সার্টিফিকেট বিক্রি

আধুনিক যুগে এসেও হাতে লেখা সার্টিফিকেট গুলোর জনপ্রিয়তা বেশি। এক সময় আমরা শুধুমাত্র হাতে লেখা সার্টিফিকেটগুলো পেতাম বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে। কিন্তু বর্তমান সময়ে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্ট এবং কম্পিউটারের ব্যবহারের ফলে আমরা কম্পিউটার থেকেই একটি সার্টিফিকেট তৈরি করতে পারি।

কিন্তু কম্পিউটার দিয়ে তৈরি করার সার্টিফিকেটগুলো আসল না নকল সেটা নির্ণায়ন করা একটু জটিল। কারণ কম্পিউটারের মাধ্যমে খুব সহজেই কপি সার্টিফিকেট তৈরি করা যায়। এজন্য উচ্চমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে হাতে লেখা সার্টিফিকেট প্রদান করে থাকেন।

যদি আপনি সার্টিফিকেট তৈরীর জন্য আপনার ক্রিয়েটিভ হাতের লেখা ব্যবহার করতে পারেন, তাহলেই আপনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সার্টিফিকেট রাইটিং এর কাজটা নিতে পারেন। যেটা আপনি ঘরে বসেই টাকা ইনকাম করার জন্য খুবই কার্যকর পদ্ধতি হতে পারে।

আরও পড়ুন:   ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই টিপস ও ট্রিকস - ২০২৩

ঘরে বসেই হাতে লিখে আয় করার জন্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সার্টিফিকেট লেখা আমার পছন্দের একটি কাজ। যদি আপনি এ কাজটি পছন্দ করে থাকেন, তাহলে অবশ্যই আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন। এবং পরবর্তী আরেকটি আর্টিকেলে আপনাদেরকে এমন কিছু টিপস শেয়ার করব যেগুলোর মাধ্যমে আপনারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করে ঘরে বসে হাতে লিখে সার্টিফিকেট থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

৩. বই ও নোট খাতার কাভার লিখে আয় করুন:

ক্রিয়েটিভ ডিজাইনারের প্রতিযোগিতার সময়ে আপনার হাতের লেখা ব্যবহার করে আপনি একটি রাইটিং বিজনেস শুরু করতে পারেন। বর্তমান সময়ে শিক্ষার প্রতিষ্ঠানগুলোতে তাদের বইগুলোতে সুন্দর অর্থবহ কভার পেজ ফুটিয়ে তোলার জন্য হাতে লেখা কভার পেজ গুলো ব্যবহার করে থাকেন।

হাতের লেখা কভার গুলো অত্যন্ত সুন্দর এবং মাধুর্য পূর্ণ হয়ে থাকে এবং হাতে লেখা বই ও নোটখাতার কভার পেজগুলো মানুষের মনকে আকর্ষিত করে এবং মনের মত করে বিভিন্ন অর্থবহ বিষয়গুলোকে তুলে ধরা যায়।

এজন্য অনেক অভিজ্ঞ ব্যক্তিরাই হাতের লেখা নোট খাতা এবং বইয়ের কভার লেখার জন্য পরামর্শ দিয়ে থাকেন। আর এই পরামর্শ অনুযায়ী বিভিন্ন শিক্ষার প্রতিষ্ঠান এমন ব্যক্তিদেরকে হায়ার করে থাকেন যাদের হাতের লেখা অত্যন্ত সুন্দর।

৪. এসাইনমেন্ট রাইটিং জব:

স্কুল-কলেজে কিছু এমন ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে যারা নিজেরাই নিজেদের অ্যাসাইনমেন্ট গুলো করতে চান না। আপনি এমন ছাত্র-ছাত্রীদেরকে টার্গেট করে ঘরে বসে হাতে লিখেই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

এসাইনমেন্ট রাইটিং জব
এসাইনমেন্ট রাইটিং জব

এজন্য বর্তমান সময়ে অনলাইনে অনেকগুলো ওয়েবসাইটে রয়েছে যেখানে ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের অ্যাসাইনমেন্ট গুলো লিখে দেওয়ার জন্য ডাটা এন্ট্রি টাইপের জব গুলো পোস্ট করে থাকেন। তবে আপনি যদি অনলাইন বিষয়ে অভিজ্ঞ না হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি আপনার আশেপাশের বিভিন্ন স্কুল-কলেজ থেকেই এধরনের অ্যাসাইনমেন্ট রাইটিং এর অর্ডার সংগ্রহ করতে পারেন।

যারা নিজেরাই নিজেদের কাজগুলো করতে আগ্রহী হয় না এমন টাইপের ছাত্র-ছাত্রীদেরকে আপনি তাদের এসাইনমেন্ট গুলো লিখে দিয়ে ইনকাম করতে পারবেন। সাধারণত এসাইনমেন্ট গুলোতে যার হাতের লেখা যত বেশি সুন্দর হয়, তাদের অ্যাসাইনমেন্টের পয়েন্টও বেশি দেওয়া হয়। তাই আপনার হাতের লেখা যদি সুন্দর হয়ে থাকে, তাহলে আপনি স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের অ্যাসাইনমেন্ট লেখার কাজগুলো সংগ্রহ করতে পারেন।

আরও পড়ুন:   ৩টি ঘরে বসে মোবাইলে আয় করার সুযোগ - ২০২৩

আপনার পরিচিত কয়েকজন ছাত্রছাত্রীদেরকে বলে দিলেই তারা স্কুল-কলেজে তাদের বন্ধু-বান্ধবদের সাথে এ বিষয়ে যদি শেয়ার করে, তাহলে আপনার প্রচারণা বৃদ্ধি পাবে। ফলে আপনি একাধিক অ্যাসাইনমেন্ট লেখার কাজ পেয়ে যাবেন।

৫. সিগনেচার ডিজাইন:

সিগনেচার ডিজাইন
সিগনেচার ডিজাইন

সিগনেচার শেখার জন্য অনেক মানুষ একজন প্রফেশনাল সিগনেচার ডিজাইনার কে খুঁজে থাকেন। বর্তমান সময়ে সিগনেচার অনেক জনপ্রিয় একটি মাধ্যম নিজের পরিচয় বা সিকিউরিটি উন্নত করার জন্য। ব্যাংক, স্কুল, অফিস, আদালত সব জায়গায় একটি প্রফেশনাল সিগনেচার প্রয়োজন হয়।

সিগনেচার ডিজাইন এর কাজ সংগ্রহ করার জন্য আপনি সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করতে পারেন, অথবা আপনি বিভিন্ন অফিস আদালতে এই বিষয়ে বিজ্ঞাপনের টু-লেট যুক্ত করতে পারেন। যার মাধ্যমে একাধিক প্রফেশনালরা আপনার কাছ থেকে সিগনেচার ডিজাইন করে নিতে পারে।

সাধারণত সিগনেচার রাইটিং এর কাজটা আমার অত্যন্ত পছন্দের একটি কাজ। যদি আপনি এই কাজটি করতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনার ঘরে বসে হাতে লিখে ভালো ইনকাম হবে। যারা ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করতে চান, তাদের জন্য অত্যন্ত সুন্দর একটি আইডিয়া সিগনেচার ডিজাইন।

ঘরে বসে হাতে লিখে আয় সম্পর্কিত সারমর্ম বার্তা:

আর্টিকেলটিতে আমরা আপনাদের সাথে ৫টি এমন আইডিয়া শেয়ার করেছি। যেগুলোর মাধ্যমে ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করা সম্ভব। আমাদের শেয়ার করা হাতে লিখে আয় করার পদ্ধতি গুলো যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে অবশ্যই আর্টিকেলটিতে একটি কমেন্ট করে আপনার মতামত জানাবেন।

সেই সাথে আমাদের সাথে যুক্ত হওয়ার জন্য আমাদের ফোরামে রেজিস্ট্রেশন করে একজন ফরম মেম্বার হয়ে যেতে পারে না। আমাদের ফোরামের মধ্যে আপনার অজানা বিষয়ে যে কোন প্রশ্ন করে সাহায্য নিতে পারেন। ঘরে বসে হাতে লেখা সম্পর্কিত আমাদের আজকের আর্টিকেলটি এখানে শেষ করছি। পরবর্তীতে আমরা এটি আরো একাধিক ক্রিয়েটিভ আইডিয়া নিয়ে আপডেট করার চেষ্টা করব।

6 thoughts on “ঘরে বসে হাতে লিখে আয় করার ৫ টি দারুণ উপায়”

  1. আসসালামু আলাইকুম ভাই।
    আপনার লেখাটা আমি পড়েছি এবং খুব ভালো লেগেছে। আমার হাতের লেখা অনেক সুন্দর। বাংলা ও ইংরেজি দুটোই। হাতের লেখা শেখানোর অভিজ্ঞতা ও আছে
    তো আপনি যদি আমাকে হাতে লেখার কোনো কাজ দিতেন। আমি আপনার সাহায্য চাই।

    Reply

Leave a Comment