ভোটার তথ্য বা ভোটার লিস্ট বের করার নিয়ম

যদি আপনি ভোটার হয়ে থাকেন, তাহলে অবশ্যই আপনার ভোটার তথ্য বা ভোটার লিস্ট বের করার নিয়ম জেনে রাখা প্রয়োজন। কেননা যে কোন সময় আপনার ভোট প্রদান করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ভোট দেওয়ার আগে ভোটার সিরিয়াল নাম্বার এবং ভোটার এলাকা জেনে নিতে হবে। যদি এই তথ্যগুলো জানা না থাকে, তাহলে আপনি আপনার পছন্দের কোনো প্রার্থীকে ভোট প্রদান করতে পারবেন না।

তাই আজকের ব্লগ পোস্টের মধ্যে আমরা আপনাদেরকে শেখাবো। কিভাবে খুব সহজেই নিজের হাতে থাকা মোবাইল ফোন ব্যবহার করে। যেকোনো মুহূর্তে আপনার ভোটারের তথ্য আপনি বের করতে পারবেন। এবং ভোটার লিস্ট কত নাম্বারে রয়েছে? সেটি আপনি জেনে নিতে পারবেন সবার আগে। এবং আপনার পরিবারের যারা ভোটার হয়েছে। তাদের তথ্যগুলি আপনি খুব সহজে বের করতে পারবেন। 

ভোটার তথ্য

ভোটার তথ্য বের করার নিয়ম জানাটা কেন গুরুত্বপূর্ণ। এই বিষয়টি হয়তো অনেকেরই অজানা থাকতে পারে। কিন্তু যারা ভোটার হয়েছে এবং যে কোনো পছন্দের প্রার্থীকে নিজের ভোট প্রদান করতে চাচ্ছেন, তাদের জন্য অবশ্যই এটি গুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়াও আপনি যদি আপনার ভোটার তথ্য পরিবর্তন করতে চান, তাহলে ভোটার তথ্য পরিবর্তনের জন্য আবেদন করার পুর্বে আপনার বর্তমান ভোটার এলাকা সম্পর্কে তথ্য গুলো আপনাকে প্রদান করতে হবে। তাহলে আপনি আপনার পছন্দের অন্য এলাকায় আপনার ভোটার তথ্য স্থানান্তর করতে পারবেন। 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক | জন্ম নিবন্ধন অনলাইন যাচাই

জন্ম নিবন্ধন চেক

এছাড়াও ভোটার লিস্ট বের করার পদ্ধতি জানা গুরুত্বপূর্ণ। কেননা বিভিন্ন কাজের ক্ষেত্রে জরুরি মুহূর্তে আপনাকে এই সকল তথ্য বিভিন্ন জায়গায় ব্যবহার করতে হবে। যদি জরুরি মুহূর্তে আপনি এই সকল তথ্য গুলো সঠিকভাবে প্রদান করতে না পারেন, তাহলে কিন্তু আপনার কাজটি সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন:   বিকাশ থেকে বিদ্যুৎ বিল দেওয়ার নিয়ম

তাই যদি আপনি একজন সচেতন ব্যক্তি হয়ে থাকেন। এবং আপনার ভোটার এলাকার নাম, ভোটার সিরিয়াল নাম্বার, এবং আপনার ভোটারের গোপন কোড সম্পর্কে আপনি জেনে রাখেন। তাহলে পরবর্তীতে এগুলো আপনার অবশ্যই ভালো কাজে লাগবে। 

ভোটার লিস্ট বের করার নিয়ম

চলুন তাহলে এখন আমরা দেখে নিই ধাপে ধাপে কিভাবে ভোটার লিস্ট বের করা যায়? বা ভোটার লিস্ট বের করার নিয়ম সম্পর্কে। কয়েকটি সহজ ধাপ অনুসরণ করে আপনি খুব সহজেই ভোটার লিস্ট বের করতে পারবেন। ভোটার তথ্য বের করার জন্য আপনি নিচের নিয়মগুলো অনুসরণ করুন। এবং ছবিতে দেখানো বিষয়গুলোকে সঠিকভাবে দেখুন। 

প্রথমে আপনাকে https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/voter-info এই লিংকটি ভিজিট করতে হবে। 

nid pub
nid pub

লিংকটি ভিজিট করার পর উপরের মত একটি ছবি দেখতে পাবেন। ছবিতে একটি ফরম দেখা যাচ্ছে। এই ফরমটি সঠিক তথ্য দিয়ে আপনাকে পূরণ করতে হবে। মনে রাখবেন, এই ফরমটি পূরণ করার জন্য অবশ্যই ভোটার হয়েছে এরকম কোন একজন ব্যক্তির ভোটার আইডি নাম্বার এবং জন্ম তারিখের তথ্যগুলো প্রয়োজন হবে।

ফরম পূরণ করেছি
ফরম পূরণ করেছি

উপরের ছবিটি যদি একটু ভালো করে লক্ষ্য করে দেখেন, তাহলে এখানে দেখতে পাচ্ছেন। আমি ফরমটি সঠিকভাবে পূরণ করেছি। প্রথমে এখানে যে ব্যক্তির তথ্যগুলো যাচাই করব তার জাতীয় পরিচয় পত্রের এনআইডি নাম্বার টি প্রথম বক্সের মধ্যে বসিয়েছি। এরপরের বক্সগুলোতে ক্রমানুসারে জন্মতারিখ, মাস, এবং বছর যুক্ত করেছি। 

ক্যাপচা কোড
ক্যাপচা কোড

তথ্যগুলো সঠিকভাবে দেওয়ার পরে একটু স্ক্রল করে নিচে আসতে হবে। নিচে আসার পরে আপনি উপরের ছবির মত দেখতে পাবেন। এখানে লাল কালার দ্বারা চিহ্নিত করা হয়েছে। চিহ্নিত জায়গায় একটি ক্যাপচা কোড রয়েছে।

আরও পড়ুন:   সেলস এন্ড মার্কেটিং জব এর সুবিধা ও টিপস

সেই কোডটি খালি বক্সের মধ্যে বসাতে হবে। উপরের ছবিটি যদি ভালো করে লক্ষ্য করে দেখেন, তাহলে দেখতে পাচ্ছেন। আমি কটি বক্সের মধ্যে ক্যাপচাটি সঠিকভাবে বসেছি। হয়তো ছবির মধ্যে আপনারা কোডটি ভালোভাবে দেখতে নাও পারেন। তবে যখন আপনি এই নিয়মটি অনুসরন করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে সঠিক কোডটি ভালোভাবে দেখে টাইপ করতে হবে। 

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো? Freelancing ক্যারিয়ার ও আয় করার উপায়

ক্যারিয়ার ও আয়

এরপরে ভোটার তথ্য দেখুন এই লেখার উপরে ক্লিক করতে হবে। যখন বাটন এর উপরে ক্লিক করবেন তখন নিচে আপনার ভোটারের তথ্য গুলো চলে আসবে। এখান থেকে আপনার ভোটার লিস্ট দেখে নিতে পারেন। 

ভোটার নাম্বার
ভোটার নাম্বার

ছবিটি যদি একটু ভালো করে লক্ষ্য করে দেখেন, তাহলে দেখতে পাচ্ছেন। ভোটার নাম্বার, ভোটার সিরিয়াল, জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর, পিন নাম্বার, এভাবে করে ক্রমান্বয়ে সব তথ্য দেখানো হচ্ছে। যদি আপনি এই নিয়মটি অনুসরন করে আমার মত সঠিক ভাবে কাজ করে থাকেন। তাহলে আপনি খুব সহজে ভোটার লিস্ট বের করার নিয়ম জেনে গেছেন। 

ভোটার এলাকা
ভোটার এলাকা

এখানে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ভোটার সিরিয়াল নাম্বার এবং ভোটার এলাকা জানা। যেকোনো সময় যদি আপনি ভোট প্রদান করতে যান। তার আগে অবশ্যই আপনাকে এই তথ্যগুলো জেনে নিতে হবে। না হলে আপনি ভোটকেন্দ্রে গিয়ে আপনার ভোট প্রদান করতে পারবেন না। যদি আপনি ভোটকেন্দ্রে গিয়ে আপনার ভোটার সিরিয়াল নাম্বারটি বলতে পারেন, তাহলে খুব সহজেই আপনি আপনার ভোট প্রদান করতে পারবেন। 

আরও পড়ুন:   ২০২৪ সালে আপনার পাঁচটি নতুন বিষয়ে শেখা প্রয়োজন

ভোটার লিস্ট

Votar Info Tutorial

আমাদের মধ্যে অনেকেই মনে করে। জাতীয় পরিচয় পত্র হাতে থাকলেই যে কোন সময় প্রার্থীকে ভোট প্রদান করা যাবে। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। যদি আপনি আপনার পছন্দের প্রার্থীকে ভোট প্রদান করতে চান, তাহলে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের কোন প্রয়োজন নাই।

শুধুমাত্র আপনার ভোটার সিরিয়াল নাম্বার এবং ভোটার এলাকা সম্পর্কে আপনার জানা থাকতে হবে। যদি আপনি সঠিক এলাকায় গিয়ে ভোটার সিরিয়াল নাম্বারটি বলতে পারেন, তাহলে আপনি আপনার পছন্দের যে কোন প্রার্থীকে ভোট প্রদান করতে পারবেন।

2 thoughts on “ভোটার তথ্য বা ভোটার লিস্ট বের করার নিয়ম”

Leave a Comment