অনলাইনে সিমের (SIM) মালিকানা পরিবর্তন করুন

অনেক ক্ষেত্রে আমরা মা বাবার জাতীয় পরিচয় পত্র দিয়ে সিম ব্যবহার করে থাকি অথবা বড় ভাইদের জাতীয় পরিচয় পত্র দিয়ে সিম ব্যবহার করি। এক্ষেত্রে আমাদের পরবর্তীতে সিমের মালিকানা পরিবর্তনের প্রয়োজন হতে পারে। আপনি যদি আপনার ব্যবহার করা সিমটির মালিকানা পরিবর্তন করতে চান তাহলে অনলাইনে সিমের মালিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন মাত্র দুই মিনিটের মধ্যে।

অনলাইনের মাধ্যমে সিমের মালিকানা পরিবর্তন কিভাবে করতে হয় এ বিষয় নিয়ে আজকের এই লেখাতে আপনাদেরকে তথ্য দিয়ে সাহায্য করবো।

সিমের মালিকানা পরিবর্তন করার নিয়ম

সিমের মালিকানা পরিবর্তন করার জন্য বর্তমানে যে মালিকের জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য দিয়ে সিমটি নিবন্ধন করা হয়েছে তার জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্যগুলো প্রয়োজন হবে। সেই সাথে বর্তমানে আপনি যেই জাতীয় পরিচয় পত্রের অধীনে মালিকানা পরিবর্তন করতে চাচ্ছেন সেই জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বারটি প্রয়োজন হবে। এবং সেই সাথে অবশ্যই যে নাম্বারটি মালিকানা পরিবর্তন করতে চাচ্ছে আমি সে নাম্বারটি ব্যবহার করতে হবে।

অনলাইনের মাধ্যমে সিমের মালিকানা পরিবর্তন করার জন্য প্রথমেই আপনাকে গ্রামীণফোনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে এবং এখান থেকে আপনাকে সিম সার্ভিসের গিয়ে সিমের মালিকানা পরিবর্তনের অপশনটি নির্বাচন করতে হবে।

সিমের মালিকানা পরিবর্তন
সিমের মালিকানা পরিবর্তন

পরবর্তী ধাপে আপনাকে যে নাম্বারটি পরিবর্তন করতে যাচ্ছেন সে নাম্বারটি দিয়ে বর্তমানে এই নাম্বারটি যেই জাতীয় পরিচয় পত্রের অধীনে নিবন্ধন করা হয়েছে সে জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার দিতে হবে। এরপরে নতুন মালিকানার নাম্বারটি দিতে হবে।

আরও পড়ুন:   চাকরির বাজারে এগিয়ে থাকার ৭টি গুরুত্বপূর্ণ উপায়
বর্তমান মালিকের জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার
বর্তমান মালিকের জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার

মালিকানা পরিবর্তনের তথ্য সরবরাহ করতে হবে

উপরের ধাপ করে যদি আপনি সম্পন্ন করে থাকেন তাহলে এখন আপনি একজন নতুন মালিক হিসেবে আপনার তথ্যগুলো দিয়ে পুনরায় আপনার সিমটার মালিকানা পরিবর্তন করতে হবে। অর্থাৎ পূর্বের যে মালিক ছিল তার কোন তথ্য থাকবে না। এখন পুনরায় আপনার তথ্যগুলো দিয়ে এই সিমটা রিপ্লেস হয়ে যাবে ফলে আপনি নতুন মালিক হয়ে যাবেন।

নতুন মালিকানা তথ্য
নতুন মালিকানা তথ্য

এক্ষেত্রে নিচের ছবিটি যদি আপনি লক্ষ্য করেন তাহলে ছবিতে দেখানো যে খালি বক্সগুলো রয়েছে সেগুলোতে আপনার তথ্যগুলো দিয়ে পূরণ করতে হবে। আমি উদাহরণ হিসেবে ছবিটি যুক্ত করেছি যেন একজন পাঠক হিসেবে আপনি এ বিষয়টা বুঝতে পারেন।

সকল তথ্য সরবরাহ করার পরে আপনাকে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। খুব অল্প সময়ের মধ্যে গ্রামীণফোন অপারেটরের যেকোনো একজন কর্মী আপনার বাড়িতে আসবে এবং আপনার বাড়িতে এসে পূর্বের মালিকের ফিঙ্গার সংগ্রহ করবে এবং সেই সাথে নতুন মালিকের ফিঙ্গার সংগ্রহ করবে। দুজনের ফিঙ্গার সংগ্রহ করে তথ্যগুলো সঠিকভাবে যাচাই করার পরে আপনার গ্রামীণফোন সিমের মালিকানা পরিবর্তন হয়ে যাবে।

এখানে যে পদ্ধতি আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি এই পদ্ধতিতে বর্তমানে শুধুমাত্র গ্রামীণফোনের সিমের মালিকানা পরিবর্তনের সুযোগ রয়েছে। অনলাইনের মাধ্যমে আপনি যদি অনলাইনে সিমের মালিকানা পরিবর্তন করতে চান তাহলে গ্রামীণফোনের এই সুবিধা উপভোগ করতে পারেন। আশা করতেছি অন্যান্য অপারেটররা এই সুবিধা তাদের গ্রাহকদের জন্য খুব দ্রুত নিয়ে আসবে।

মন্তব্য করুন